‘আমি এখন অনেক বুঝেশুনে কাজ করতে চাই’

২০১৭ নভেম্বর ১৫ ০০:৩৫:৪৩ <!– প্রিন্ট–>

‘আমি এখন অনেক বুঝেশুনে কাজ করতে চাই’

বড় পর্দায় পরীমনির ক্যারিয়ারের বয়স মাত্র তিন বছর। ২০১৫ সালে শাহ আলম মণ্ডলের পরিচালনায় এ অভিনেত্রীর ‘ভালোবাসা সীমাহীন’ ছবিটি মুক্তি পায়। এরপর আর পেছন ফিরে তাকাতে হয়নি তাকে। অনেকের মতে, বড় পর্দায় অল্প সময়ে সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয়তা পেয়েছেন পরীমনি। বেশকিছু দর্শকপ্রিয় ছবিও তিনি উপহার দিয়েছেন। বড় পর্দার হাস্যময়ী এই মুখ ক্যারিয়ারের শুরুতে অনেক ছবিতে কাজ করলেও বর্তমানে একজন পরিপক্ব অভিনেত্রীর মতো বুঝেশুনে নতুন ছবিতে হাত দিচ্ছেন।

এ বছরে তার অভিনীত আরো দু’টি ছবি মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে। ছবি দু’টি হচ্ছে মালেক আফসারী পরিচালিত ‘অন্তর জ্বালা’ ও অপূর্ব রানার ‘ইনোসেন্ট লাভ’। এ দু’টি ছবিতে পরীমনির বিপরীতে অভিনয় করেছেন যথাক্রমে জায়েদ খান ও জেফ। দু’টির মধ্যে কোন ছবিটিকে পরী এগিয়ে রাখবেন জানতে চাইলে বলেন, দু’টি ছবিই আমার কাছে ভীষণ আপন। এগুলো আমার ক্যারিয়ারের দুই সময়ের হলেও একই মাসে মুক্তি পাচ্ছে। এসবের মধ্যে ‘ইনোসেন্ট লাভ’ ক্যারিয়ারের শুরুর দিকের ছবি। বলতে গেলে আমার অভিনীত চার নম্বর ছবি ছিল এটি। তাই ওই সময়ে আমি কেমন ছিলাম, দর্শক তা পর্দায় উপভোগ করতে পারবেন।

‘ইনোসেন্ট লাভ’ ছবিটিতে ইনোসেন্ট লুকের পাশাপাশি আমাকে সেভাবে গল্প দিয়েও উপস্থাপন করার চেষ্টা করেছেন পরিচালক। আর ‘অন্তর জ্বালা’ ছবিতে দর্শক একজন পরিপক্ব আর্টিস্টকে দেখতে পাবেন। ‘অন্তর জ্বালা’ ছবির মধ্যে জ্বালাটা কি প্রেমের? এমন প্রশ্নের জবাবে পরীর জবাব, না। এটি প্রেমনির্ভর না, জীবননির্ভর ছবি। প্রেম ছবির একটি অংশ মাত্র। এখানে ছবি দেখার পর যে উচ্চারণ করবে জ্বালা সে-ই অনুভর করতে পারবে মূলত কিসের জ্বালার কথা বলতে চেয়েছেন পরিচালক। ছবিতে হিন্দু পরিবারের একটি মেয়ের চরিত্রে অভিনয় করেছি। আশা করি, ১৫ই ডিসেম্বর সবাই প্রেক্ষাগৃহে ছবিটি দেখবেন এবং এটি পছন্দ করবেন। গত কোরবানির ঈদে পরীমনি অভিনীত ‘সোনাবন্ধু’ ছবিটি সবশেষ প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পায়। ছবিটি পরিচালনা করেন জাহাঙ্গীর আলম সুমন।

এরপর ভারতের সৈনক মিত্রের পরিচালনায় স্যান্ডালিনা বিউটি সোপের নতুন একটি বিজ্ঞাপনে মডেল হয়েছেন পরী। নতুন নতুন ছবি ও বিজ্ঞাপনে মডেল হিসেবে কাজের প্রস্তাব প্রায় সময়ই পান এ অভিনেত্রী। কিন্তু সেসবের অধিকাংশই তিনি ফিরিয়ে দেন। কেন জানতে চাইলে পরীমনি বলেন, আমি প্রতিটি কাজকে অনেক সম্মান করি। তবে আমি এখন অনেক বুঝেশুনে কাজ করতে চাই। আর একজন শিল্পীর ভালো-মন্দ বাছাইয়ের ব্যক্তি স্বাধীনতা থাকা উচিত। কোনো ছবিকে বা কাজকে ছোট করে বলছি না, আমার যে কাজটি মনে ধরবে সেটা আমি অবশ্যই করব। চলতি বছরের শুরুতে পরীর ‘কত স্বপ্ন কত আশা’ ছবিটি মুক্তি পায়।

আর বছর শেষে মুক্তি পাচ্ছে দুটি ছবি। মাঝেও মুক্তি পেয়েছে কয়েকটি ছবি। পুরো বছরটি তার কেমন কেটেছে জানতে চাইলে এক কথায় পরীমনি বলেন, বেশ ভালো কেটেছে। বছরের শুরুতে, মাঝে এবং শেষে দর্শকদের ভালো কাজ দেয়ার চেষ্টা থাকে আমার। আর হিসাব করলে দেখা যাবে এ বছরটিও সেভাবে কাটছে। দিন যাবে মানুষের প্রত্যাশা বাড়বে, এটাই স্বাভাবিক। আর আমিও সামনে ভালো কাজ দেয়ার চেষ্টা করব। নতুন বছরে পরীমনি অভিনীত ও গিয়াসউদ্দিন সেলিম পরিচালিত আরেকটি আলোচিত ছবি মুক্তি পাবে। ছবির নাম ‘স্বপ্নজাল’। এ ছবিটি নিয়েও বেশ আশাবাদী পরীমনি। এ ছবিতে নবাগত অভিনেতা ইয়াশ রেহানের বিপরীতে কাজ করেছেন তিনি।

এছাড়া শামীমুল ইসলাম শামীমের ‘আমার প্রেম আমার প্রিয়া’, শওকাতের ‘নদীর বুকে চাঁদ’ ছবিতেও কাজ করেছেন পরীমনি। এসব ছবিতে যথাক্রমে কায়েস আরজু ও সাইমন সাদিকের বিপরীতে অভিনয় করেছেন তিনি। এছাড়া সামনে চাইনিজ একটি ছবিতে অভিনয় করতে যাচ্ছেন এ অভিনেত্রী। ছবির নাম ‘চেজিং মার্ডার’। নির্মাণ করবেন হুজিয়াহুই ও ডেনিপ্যাং। নতুন ছবির খবর কবে দেবেন জানতে চাইলে সবশেষে পরীমনি বলেন, নতুন বছরে নতুন ছবির খবর দিতে চাই। এখনই সব বলতে চাই না। কিছু চমক আমার হাতে থাক।