খুনের মামলার প্রধান আসামি এবার বিড়াল, এটাও কি সম্ভব!












মায়ুকো মাটসুমোটো ৮২ বছর বৃদ্ধা একাই বাড়িতে ছিলেন। তার মেয়ে বাইরে থেকে ফিরে দেখেন মুমূর্ষু অবস্থায় মৃত্যুর সাথে লড়াই করছেন তার মা। দ্রুত তাকে নিয়ে যাওয়া হয় হাসপাতালের জরুরি বিভাগে। তার ওপর ভয়াবহ নির্যাতন হয়েছে। সারা শরীর রক্তে ভিজে গেছে।

গলা এবং মুখমণ্ডলে একাধিক জখমের চিহ্ন। এই হামলা কে করেছে তা বলার মতো অবস্থাতেও ছিলেন না মায়ুকো 

মাতসুমোটো। তবে খুনের চেষ্টার সন্দেহভাজন হিসেবে দায়ী করা হচ্ছে একটি বিড়ালকে। তার মেয়ে পুলিশকে খবর দিলে দ্রুত ঘটনাস্থলে ছুটে আসে পুলিশ।

তার অবস্থা দেখে তদন্ত শুরু করেছে। ঐ বৃদ্ধার সারা শরীর রক্তে ভিজে ছিল। মুখের মধ্যে ২২টি কাটার চিহ্নও পাওয়া গেছে। আর তার বাড়ির কাছে একটি রক্তমাখা বিড়ালকে দেখে পরবর্তীতে দুইয়ে দুইয়ে চার মিলিয়েছে পুলিশ।

তবে সন্দেহভাজন বিড়ালটিকে এখনো খুঁজে পায়নি পুলিশ। তার খোঁজে চারিদিকে অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ।