চলচ্চিত্র আমাকে হতাশা ছাড়া কিছুই দেয়নি : আফ্রি

মডেল হিসেবে ২০১১ সালে মিডিয়াতে পথচলা শুরু করেন সেলিনা আফ্রি। এরপর দেশসেরা বিভিন্ন পণ্যের বিজ্ঞাপনে কাজ করেছেন। ২০১২ সালে যৌথ প্রযোজনার ‘অন্যপথ’ ছবিতে কলকাতার ইন্দ্রনীলের সঙ্গে অভিনয় করেন। এছাড়া হ্যালো, রোমান্স, প্রাপ্তি, স্বপ্ন যে তুই, নীল ফড়িং ছবিগুলোতেও কাজ করেন আফ্রি। তবে ‘তার স্বপ্ন যে তুই’ ছবিটি ইমনের বিপরীতে ২০১৫ সালে মুক্তি পায় এবং ‘নীল ফড়িং’ ছবিটি রয়েছে মুক্তির অপেক্ষায়।

ছয়টি ছবিতে অভিনয় করেছেন। মুক্তি পেয়েছে মাত্র একটি, কেন?
আমাদের দেশের ছবির কাজ শুরু হয় অনেক আয়োজন করে কিন্তু শেষ হয় খুবই খারাপ অবস্থায়। যখন ছবির শুটিং শুরু হয় বা শুটিংয়ের পরিকল্পনা করা হয়, তখন বলা হয় একটানা শুটিং করে কাজ শেষ করা হবে। কিন্তু দুঃখের বিষয় শেষ করতে বছরের পর বছর লেগে যায়। আমার কয়েকটা ছবির ক্ষেত্রে তাই হয়েছে। এর কারণ হচ্ছে, প্রযোজক-পরিচালকের মধ্যে মনোমানিল্য। একে অন্যের মতামতে খাপ খায় না। আমি নিজে এগুলো অনুধাবন করেছি।

ওই ছবিগুলো কী মুক্তির সম্ভাবনা আছে?
নোমান ফিল্মস প্রযোজিত ও ইদ্রিস হায়দার পরিচালিত ‘নীল ফড়িং’ ছবিতে অভিনয় করে আমি খুব খুশি। যেমনটা পরিকল্পনা ছিল, সেভাবেই কাজ হয়েছে। এ ছবির সব কাজ শেষ। জেনেছি ডিসেম্বর অথবা আগামী বছরের প্রথমদিকে মুক্তি পাবে। ছবিতে আমার বিপরীতে অভিনয় করেছেন শিপন মিত্র। বাকি ছবিগুলোর আশা ছেড়ে দিয়েছি। কারণ কয়েক বছর হয়ে গেছে। চলচ্চিত্র নিয়ে আমি হতাশ।

বললেন ‘হতাশ’, তার মানে আগামীতে আর চলচ্চিত্রে কাজ করবেন না?
আমি চারটি বছর ফিল্মকে আকড়ে ধরে রেখেছিলাম। ফিল্ম আমাকে হতাশা ছাড়া আর কিছুই দেয়নি। শুধু ফিল্ম নয়, ফিল্মের মানুষের সঙ্গে মিশেও আমি হতাশ। আমার মনে হয়েছে ফিল্ম কিছু দেয়নি, বরং অনেক কিছু নিয়েছে। যখনই আমি মডেলিং, বিজ্ঞাপন নাটকে কাজ শুরু করলাম তখনই আমি ফোকাসড হয়েছি। যেটা চেয়েছিলাম সেটাই পেয়েছি। আর ফিল্ম করবো না এমনটা নয়, অবশ্যই করবো। তবে ভালো প্রডাকশন হাউজ, পরিচালক দেখে করবো।

এই সমস্যা কেন হয় বলে মনে করেন?
কমিটমেন্ট ঠিক রাখতে হবে, সবকিছু গোছানো হতে হবে। এখানে মানুষের জবান ঠিক থাকে কম। যাকে যে চরিত্র উপস্থাপনের জন্য নেওয়া হয়, সেটা যেন ঠিক থাকে। একটা জিনিস দেখিয়ে আরেকটা জিনিস না না দেয়া হয়। এসব কিছু ঠিক থাকলে আমাদের ছবির সিনেমার ইন্ডাস্ট্রি আরও উন্নতি করবে।

সাম্প্রতিক ব্যস্ততা…
আদনান আল রাজীবের আকিজ গ্রুপের একটি বিজ্ঞাপন করলাম। অমিতাভ রেজা’র রবির বিজ্ঞাপন, এলজি স্মার্ট টেলিভিশনের কাজ শেষ করলাম। দীপ্ত টেলিভিশনের জন্য ইভান মনোয়ারের নির্দেশনায় ‘শনিবারের চোর’ নামের একটি নাটকে কাজ করলাম। এছাড়া আরটিভিতে তুষার খানের নির্দেশনায় ‘বহে সমান্তরাল’ নাটকে কাজ করলাম। আর যা টুকটাক কাজ করছি বেছে বেছেই করছি।

আরএম-২৮/১৫-১১ (বিনোদন ডেস্ক, তথ্যসূত্র: জাগোনিউজ)