জানা গেছে হাথুরুর পদত্যাগের অন্যতম বড় কারণ












পদত্যাগ করা চন্দিকা হাথুরুসিংহে থাকবেন না, এটা নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বোর্ডের একাধিক পরিচালক নিশ্চিত করেছেন ক’দিন আগেই। কিন্তু বোর্ড থেকে এখন পর্যন্ত সেই ঘোষণা আসেনি। আসবে কি করে ?

হাথুরুসিংহেকে যে বাংলাদেশে আসতে বলা হয়েছে। তার সাথে ফোনে কথা বলে বিসিবি সিইও নিজামউদ্দীন চৌধুরী সুজন প্রায় সপ্তাহ খানেক আগেই বাংলাদেশে আসতে বলেছেন।

বোর্ড থেকে জানানো হয়েছিল ১৫ নভেম্বরের মধ্যে তাকে আসতে বলা হয়েছে। তবে এখনকার খবর, আগামীকাল হয়ত আসবেন না হাথুরু। কিন্তু বিসিবি সিইওর আজকের কথা শুনে মনে হচ্ছে হাথুরুসিংহে হয়ত কাল পরশুর ভিতরে এসে পৌঁছাবেন।

এদিকে হাথুরুসিংহে আসলে বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসান পাপন সহ বোর্ডের নীতি নির্ধারকরা তার সাথে খোলাখুলি আলাপ করবেন। তার কাছে পদত্যাগের সম্ভাব্য কারণ জানতে চাওয়া হবে।

তবে যতই কথা বার্তা হোক তাতে বরফ গলার সম্ভাবনা খুব কম। কারণ ক্রিকেট পাড়ায় জোর গুঞ্জন, হাথুরুসিংহে বাংলাদেশের সিনিয়র ক্রিকেটারদের বিপক্ষে অবস্থান নিয়ে ফেলেছেন।

দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে তার সাথে মুশফিকুর রহিমের কথোপকোথন এবং দলে সিনিয়র ক্রিকেটারদের প্রভাব দেখে অসন্তুষ্ট হাথুরু। জানা গেছে তার পদত্যাগের অন্যতম বড় কারণই এটা। যে কোচ ক্রিকেটারদের বিপক্ষে অবস্থান নিয়ে বসে আছেন, তাকে আবার ফিরিয়ে আনার সম্ভাবনাও খুব কম।

কারণ বোর্ড প্রধান ভিতরে ভিতরে দেশের সিনিয়র ক্রিকেটারদের সাথে কথা বলছেন। ইতিমধ্যে সাকিব আল হাসানের সাথে খোলামেলা আলাপ হয়েছে বোর্ড প্রধান সহ ক’জন শীর্ষ কর্তার।