রেকর্ডবুকে ’বড় ছেলে’

গেল ঈদুল ফিতর থেকেই ফের জমজমাট হয়ে উঠেছে ছোট পর্দার ঈদ। অন্ত বড় পর্দার চেয়ে ঈদের সময়টায় এখন মানুষ বেশী ঝুঁকছে ছোট পর্দার দিকে। ভালো গল্প, নির্মাণ দিয়ে মোটামুটি তুষ্ট করার মতো বেশ কিছু নাটক ঈদকে উপলক্ষ্য করে তৈরি হচ্ছে। গেল ঈদে সবার আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতে মধ্যবিত্ত পরিবারের গল্পে নির্মিত ‘বিকাল বেলার পাখি’ নাটকটি। আর এবারও ঈদুল আযহায় তুমুল দর্শকপ্রিয়তার তালিকায় আছে মধ্যবিত্ত পরিবারের গল্পে নির্মিত মিজানুর রহমান আরিয়ানের ‘বড় ছেলে’ নামের নাটকটি। এরইমধ্যে নাটকটি ছোট পর্দার ইতিহাসে নামও লেখিয়ে ফেলেছে।

গেল ঈদে ছোট পর্দায় বেশ কয়েকটি নাটক দর্শক প্রিয়তা পেয়েছে। এরমধ্যে ‘বড় ছেলে’ একটু বেশীই আলোচিত। শুধু তাই না, একজন সাধারণ দর্শকতো ‘বড় ছেলে’কে ইতিহাসের পাতায় লেখা থাকবে বলেও মন্তব্য করে বসেছেন। তবে কি কারণে ইতিহাসের পাতায় ‘বড় ছেলে’র নাম থাকবে সেটাও যুক্তি দিয়ে বলেছেন তিনি।

ঈদের নাটকের মধ্যে এখন চারদিকে ‘বড় ছেলে’র জয় জয়কার। নাটকটি ইউটিউবে দেখেননি এমন মানুষ খুঁজে পাওয়াও দুস্কর। আর ইউটিউবে গত নয়দিনে নাটকটি করে ফেলেছে কিছু বিস্ময়াভূত কীর্তি। ‘বড় ছেল ‘র অর্জন গুলো নিম্নরূপ :

১.মাত্র ৯ দিনে ৫০ লক্ষ ইউটিউব ভিউ যা কিনা বাংলাদেশে কোন নাটক সিনেমা গান ও ৯ দিনে ৫০ লক্ষ ভিউ হয় নি আগে।
২.কোন নাটক হিসেবে সর্ব প্রথম বাংলাদেশে ৫০ লক্ষ ভিউয়ের যোগ্যতা অর্জন করেছে ‘বড় ছেলে’।
৩.বাংলাদেশে প্রথম কোন কন্টেন্ট হিসেবে ইউটিউবে লক্ষাধিকের উপরে লাইক বর্তমানে ১ লক্ষ ৫৩ হাজার লাইক ও ৩০ হাজার কমেন্ট পড়েছে ইউটিউবে
৪.বাংলাদেশে আগে কোন নাটক নিয়ে এত মাতামাতি হয়নি ফেসবুকে ট্রল ও আলোচনা রেকর্ড পরিমাণ দর্শকের পোস্ট ফেসবুকে এবং ইউটিউবে ‘বড় ছেলে’র রিভিউ নিয়ে ভিন্ন ভিন্ন ভিডিও আপলোড হয়েছে।
৫. দর্শকদের অনুরোধে এই প্রথম কোন নাটক টানা তিন দিন টিভি চ্যানেলে পুনরায় অন-এয়ার হয়েছে।