আদর্শ মানুষ, স্বামী, অথবা পিতা এর কোনোটা কি হতে পেরেছেন শাকিব?

জুমবাংলা বিনোদন ডেস্ক: আজ থেকে শেষ হয়ে যাওয়ার কথা ছিলো শাকিব-অপুর বৈবিাহিক সম্পর্ক। কিন্তু এ সম্পর্কের শেষ হতে গিয়েও হলো না শেষ। আগামী ১২ মার্চ শেষ বারের মতো তাদেরকে ডাক দিবেন ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন। ঐদিন যদি কোনো সমঝোতা না হয়, তাহলে একেবারে ইতি ঘটবে তাদের এক সাথে পথচলা।

কিন্তু একজন আদর্শ মানুষ, আদর্শ স্বামী, আদর্শ পিতা কি হতে পেরেছেন শাকিব? এমনই প্রশ্ন হাজারো ভক্তদের মনে। তাদের অনেকে মনে করছেন শাকিব খান পর্দায় সফল হলেও বাস্তব জীবনে ব্যর্থ। তিনি আদর্শ মানুষ, আদর্শ স্বামী হতে পারেন নি, হতে পারেন নি আদর্শ সন্তানের পিতা। এবার দেখে নেওয়া যাক এ সম্পর্কের শুরু থেকে শেষ।

শাকিবতারকা জুটি শাকিব খান ও অপু বিশ্বাস বিয়ে করেন ২০০৮ সালে। তবে দু’জনের বিয়ে ও সন্তানের খবরটি প্রকাশ্যে আসে বিগত বছরের শুরুতে।  ২০১৬ সালের মাঝামাঝি হঠাৎ নিখোঁজ হন অপু বিশ্বাস। ফোনে কিংবা ফেইসবুকে-কোথাও পাওয়া যায়নি তাকে। কিন্তু ২১০৭ সালের  জানুয়ারিতে হঠাৎ ঢাকায় ফিরে চমকে দেন ভক্তদের।

এরপর ১০ এপ্রিল ছেলে আব্রাহাম খান জয়কে  কোলে নিয়ে বেসরকারি টিভি চ্যানেলে সরাসরি সম্প্রচারিত অনুষ্ঠানে দাবি করেন, ‘শাকিব খানের সঙ্গে ২০০৮ সালে বিয়ে হয় তার। কোলের সন্তানের বাবা শাকিব।’ অবন্তী বিশ্বাস অপু থেকে ধর্মান্তরিত হয়ে অপু ইসলাম খান নাম নিয়ে চিত্রনায়ক শাকিবকে বিয়ে করার কথা বলেছেন তিনি। বিয়ে ও সন্তান হওয়ার খবর শাকিবের কারণেই চেপে রেখেছিলেন বলে দাবি করেন অপু। শাকিব-অপু ভক্তরা এমন খবর শুনে যেন আকাশ থেকে পড়লেন!

অন্যদিকে অপু বিশ্বাস লাইভে এসে তার এ গোপল খবর দর্শকদের সামনে ফাঁস করে দেওয়ার জন ক্ষোপ প্রকাশ করেন। তিনি তখন বলেছিলেন, ‘২০০৮ সালে আমাদের বিয়ে হয়েছে ঠিক। ছেলের দায়িত্ব নেব কিন্তু অপুর দায়িত্ব নেব না।’ কিন্তু পরে সমালোচনার মুখে পড়ে অপুর দায়িত্বও নেওয়ার কথা বলেন তিনি।

তবে এরপর দু’জনের মধ্যে দূরত্বটা বাড়তে থাকে দিনে দিনে। এরপর শোনা যায় বিচ্ছেদের গুঞ্জণ। বিষয়টি নিয়ে শাকিব খান তখন খোলাখুলিভাবে কিছু না বললেও অপু বিশ্বাস গুঞ্জনকে উড়িয়ে দেন। কিন্তু গুঞ্জনটাই সত্যি হল। যখন শাকিব খান আইনজীবী শেখ সিরাজুল ইসলাম সিরাজের মাধ্যমে ২২ নভেম্বর অপুর বাসার ঠিকানায় তালাকনামা পাঠান ।

অবশেষ আজ ৯০ দিন পার হয়ে তাদের তালাক কার্যকর হওয়ার কথা থাকলেও হয়নি। কারণ তিন বার সমঝোতা বৈঠকে ডাকা না হলে নাকি ডিভোর্স কার্যকর হয়না। আর তাই আগামী ১২ মার্চ পর্যন্ত বিষয়টি স্থগিত করা হয়েছে।

বিচ্ছেদের দিন অপু-জয়ের ছবি ভাইরাল, দেখে নিন মা-ছেলের আবেগঘন কিছু মুহূর্ত

জুমবাংলা বিনোদন ডেস্ক: আজ থেকে শাকিব-অপুর বৈবাহিক সম্পর্কের ইতি ঘটতে যাচ্ছে। একই সাথে শেষ হতে চলেছে এ জুটির দীর্ঘদিনের পথচলা। আজ তাদের ডিভোর্স প্রক্রিয়ার আনুষ্ঠানিকতার শেষ দিন। গত বছরের ২২শে নভেম্বর শাকিব কর্তৃক অপুকে ডিভোর্স লেটার পাঠানো হয়। এরপর গেল তিন মাস সময়ে তাদের দুজনকে এক করতে বেশ কজন সহশিল্পী-শুভাকাঙ্ক্ষী এগিয়ে এসেছিলেন। কিন্তু তাতে কোনো লাভ হয়নি । শত চেষ্টার পরও তাদের এক করা যায়নি।

হিসাব অনুযায়ী ডিভোর্স লেটার পাঠানোর তিন মাস পূর্ণ হওয়ায় তাদের আনুষ্ঠানিক বিচ্ছেদ ঘটছে। এদিকে বিচ্ছেদের দিন অপু ও ছেলে আব্রাহাম খান জয়ের দুইটি ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে যায়। ছবি দুইটি অপু বিশ্বাস নিজেই তার ভেরিফাইড ফেসবুক পেইজে পোস্ট করেছেন।

অপু,১বিচ্ছেদের দিন মা-ছেলেকে এভাবে দেখতে পেয়ে ভক্তরা আবেগাপ্লুত হয়ে নানা কমেন্ট করতে থাকেন। ছবিটি পোস্ট করার সাথে সাথে কমেন্টের বন্যা বয়ে যাচ্ছে। এক ভক্ত লিখেছেন, ‘মা ছেলের ভালোবাসা এভাবে সারাজীবন দেখতে চাই।’ আরেক ভক্ত লিখেছেন, ‘শাকিব একটা বেঈমান ছাড়া কিছুই না। এ রকম চাঁদের টুকরা রেখে কিভাবে ভুলে থাকেন। ভালোবাসি ভাবি।’ আরেক ভক্ত লিখেছেন, ‘মা আর ছেলে এগিয়ে যাও আমরা আছি তোমাদের সাথে।’

অপু,১৫৪আরেক ভক্ত লিখেছেন, ‘শাকিব বুবলির প্রেমে হাবুডুবু খাচ্ছেন, শাকিব কি করে এসব দেখবেন। আসলে বাংলাদেশে চোর,বাটপার, বদমাইশের জনপ্রিয়তা বেশী,কেননা দেশে খারাপ মানুষের সংখ্যা বেশী। তাই খারাপ মানুষের জনপ্রিয়তা বেশী। বর্তমানে বাংলাদেশের নির্বাচনে চোর,বাটপার জয়লাভ করে আর ভালো শিক্ষিত লোক পরাজিত হয়।’

‘শাকিব একটা অভদ্র সে কিভাবে সুপারস্টার হয়, শাকিব অন্যায় কাজ করার পরে ও কিছু গরু ছাগল তার পক্ষে কথা বলছেন। আসলে ওরা কুলাঙ্গার ওরা অন্যায়কে ন্যায় বানাতে চায়। ওদের কারণেই আজকে দেশের এ অবস্থা। ওরা জাতির কলঙ্ক। আরেক ভক্ত লিখেছেন, ‘মায়ের ভালোবাসা পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ ভালোবাসা।’

জীবনের ৩২ টি বসন্ত পাড়ি দিলেন তিশা

জুমবাংলা বিনোদন ডেস্ক: ১৯৮৬ সালে আজকের দিনে জন্মগ্রহণ করেন জনপ্রিয় অভিনেত্রী নুসরাত ইমরোজ তিশা। শুভ জন্মদিন তিশা, জন্মদিনে জুমবাংলার পক্ষ থেকে রইলো অনেক অনেক শুভ কামনা। গান দিয়েই শুরু হয়েছিল তিশার পথচলা। তবে টিভি নাটকের মাধ্যমে তিনি তার অভিনয় জীবন শুরু করে খুব অল্প সময়ের মধ্যে সকল শ্রেণীর দর্শকদের কাছে অত্যন্ত জনপ্রিয় হয়ে উঠেন।

বিজ্ঞাপন ও নাটকে নিয়মিত অভিনয় করার পাশাপাশি কিছু চলচ্চিত্রেও কাজ করে দেশে বিদেশে ব্যাপক সুনাম কুড়িয়েছেন তিনি। ‘থার্ড পারসন সিঙ্গুলার নাম্বার’ , ‘টেলিভিশন’ , ‘অস্তিত্ব’ , ‘ডুব’, ‘হালদা’ নামে এ কয়টি চলচ্চিত্রে অভিনয় করে তিনি খুব সহজেই বড় পর্দায় নিজের অবস্থানকে মজবুত করে তুলেন।

তিশা,এদিকে খুব ঘরোয়াভাবে পালিত হলো তিশিার জন্মদিন। পরিচালক রেদওয়ান রনি তিশার বার্থ ডে পার্টির কিছু ছবি নিজের ভেরিফাইড ফেসবুক পেইজে শেয়ার করে লিখেছেন, `Sweet Birthday Surprised from Mostofa Sarwar Farooki to Tisha, শুভ জন্মদিন তিশা ভাবী, জীবন সুন্দর হোক। এবার বার্থ ডে পার্টির নজরকাড়া কিছু ছবি এক নজরে দেখে নেওয়া যাক।

তিশা,১
বার্থ ডে পার্টিতে  তিশাকে পরম যত্নে কেক খাওয়াই দিচ্ছেন ফারুকী।
তিশা৬
তিশার সেই নজরকাড়া হাসি আবার ফিরে এসেছে জন্মদিনে।
তিশা,২
জন্মদিনে উচ্ছ্বসিত সহকর্মীরা।

বিচ্ছেদের আগেই যে কারণে দেশে ফিরছেন শাকিব

জুমবাংলা বিনোদন ডেস্ক: বলতে বলতে ১৬ ফেব্রুয়ারি শুক্রবার সারাদেশের ১১৭টি সিনেমা হলে মুক্তি পেয়েছে উত্তম আকাশের পরিচালিত শাকিব-অভিনীত মিম অভিনীত ‘আমি নেতা হবো’ সিনেমাটি। মুক্তির প্রথম দিনেই প্রশংসায় ভাসছেন শাকিব-মিম। কিন্তু এ মুহূর্তে শাকিব দেশে নেই। তিনি বর্তমানে অস্ট্রেলিয়ায় আশিকুর রহমানের পরিচালিত ‘সুপার হিরো’ ছবির শুটিং করছেন। এতে শাকিবের বিপরীতে অভিনয় করছেন শবনব বুবলি।

তাদের সঙ্গে আছেন ছবির আরও ক’জন অভিনয়শিল্পী। তারকাবহুল এই ছবিতে কাজ করেছেন অস্ট্রেলিয়ার টেকনিশিয়ানও। এমনকি অরজিনাল অস্ত্র দিয়ে করা হয়েছে ছবির অ্যাকশন দৃশ্যগুলোর শুটিং। এই ছবিতে শাকিব-বুবলী ছাড়া আরও অভিনয় করছেন তারিক আনাম খান, শম্পা রেজা, তাসকিন রহমান ও টাইগার রবি প্রমুখ।

‘সুপার হিরো’ ছবির শুটিংয়ের কয়েকটি ছবি ইতোমধ্যে অনলাইনে ঝড় তুলেছে। আর তাতেই ব্যাপক সুনাম কুড়িয়েছেন শাকিব-বুবলি। ধারণা করা হচ্ছে একটি অসাধারণ সিনেমা হতে যাচ্ছে ‘সুপার হিরো’।

এদিকে প্রায় এক মাস পর আগামীকাল রোববার দেশেই ফিরে আসছেন শাকিব খান। সাথে আসছেন বুবলিও। কিন্তু কারণ কী? কারণ হিসেবে জানা গেছে দেশে ফিরে দু’একদিন বিশ্রাম নিবেন শাকিব। এরপর আবার শুরু করবেন ‘চিটাগাইঙ্গা পোয়া নোয়াখাইল্যা মাইয়া’ ছবির বাকি শুটিং। অন্যদিকে আগামী ২২ ফেব্রুয়ারি শাকিব-অপুর অধ্যায় শেষ হতে চলেছে। তাতে শাকিবের কোনো মাথাব্যথা নেই। তিনি মনে করেন যত তাড়াতাড়ি এ সম্পর্ক শেষ হয়ে যাবে তাতেই মঙ্গল।

 

ভক্তদের প্রশংসায় ভাসছেন শাকিব খান, জেনে নিন কে কী বলছেন

জুমবাংলা বিনোদন ডেস্ক: প্রথম সিনেমায় বাজিমাৎ করতে শুরু করেছে প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান শাপলা মিডিয়া। ‘আমি নেতা হবো’ সিনেমার মাধ্যমে যাত্র শুরু করে এ প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানটি। তবে মুক্তির প্রথম দিনে ঈদের সময়ের চেয়ে বেশি ব্যবসা করছে ছবিটি। তবে এতে অসাধারণ অভিনয় করার জন্য ভক্তদের প্রশংসায় ভাসছেন সুপারস্টার শাকিব খান। শাকিবের ফেসবুক ফ্যান পেইজে ভক্তদের প্রশংসার ঝড় বয়ে যাচ্ছে। আসুন এবার জেনে নেই কে কী বলছেন।

এক ভক্ত শাকিব খানের ফেসবুক ফ্যান পেইজে লিখেছেন, ‘আজ আপনাদের কাছে কিছু প্রশ্ন করছি, আমরা কতিপয় কিছু শিক্ষিত লোক বলে থাকি শাকিব খান অশিক্ষিতদের নায়ক, সাধারণ শ্রমিকের নায়ক, পান্তা পঁচা নায়ক, ভ্যান চালক রিক্সা চালকের নায়ক আরে ভাই কথাগুলো কি বুঝে বলেন, বাংলাদেশ থেকে, অশিক্ষিত লোক, সাধারণ লোক, ভ্যান চালক, রিক্সা চালক বাদ দিলে কয়জন শিক্ষিত মানুষ থাকে বলেন তো ? নিজেকে খুব শিক্ষিত মনে করেন?’

‘‘তাহলে আমরা কি, ও হে আমরা যেহেতু শাকিবকে লাইক করি সেহেতু আমরা অশিক্ষিত হয়ে গেছি, এখন ছোট্ট একটা উদাহারণ দেবো, কিছুদিন আগে বাংলা চলচ্চিত্রের বড় একটা গ্রুপে ‘আমি নেতা হবো’ ‘ভালো থেকো’ আর ‘নূর জাহান’ নিয়ে একটা পোস্ট দিছিল, বাট সে পোস্টে লিখা ছিলো এ তিন ছবির আপনি কোনটা দেখবেন, মজার ব্যাপার হলো সেখানে ১০০% কমেন্টের ভিতর ৯০% কমেন্ট শাকিবের পক্ষে ছিল, আর ৭% শুভ, ৩% ‘নূর জাহান’,আমার প্রশ্ন হচ্ছে তাহলে গ্রুপে এত অশিক্ষিত,ভ্যান চালক,রিক্সা চালক কোথা থেকে এলো?’’

‘‘কারণ সবাই তো শাকিব শাকিব কমেন্ট করছিলেন, আর একটা কথা ভুলে যাবেন না আজ শাকিব প্রতিযোগিতা করছেন তার দেশীয় ছবি নিয়ে ভারতীয় ছবির সাথে, আর আপনারা শাকিবকে ছোট করে কথা বলছেন। আরে কি আর বলবো ‘শুভ’ যাকে আপনারা বাংলাদেশের আপকামিং সুপারস্টার মনে করেন সেও ভারতীয় ছবির শুভ কামনা জানিয়েছেন, ব্যাপার না, কেউ দেখুক আর না দেখুক আমরা বসের সাথে আছি, কারণ আমরা দেশের সাধারণ মানুষ, আমরা ভ্যান চালক, রিক্সা চালক ভাইদের নিয়ে সাথে বসের সিনেমা দেখব, সর্বোপরি বাংলা চলচ্চিত্রের জয় হোক এটাই চাই। ধন্যবাদ সবাইকে।’’

আরেক ভক্ত শাকিব হেটারদের সমালোচনা করতে গিয়ে লিখেছেন, ‘কোথায় বাংলার হেটাররা? নিন্দুকেরা দেইখা লন, শাকিব খানের ছবি চলে কি না। অনেক সমালচনা করেছেন যে, শাকিব খানের ছবি নাকি চলবে না। শাকিব খানের ছবি যদি না চলে তা হলে কোনো ময়দার বস্তা,নায়িকা বা আবাল মার্কা নায়ক দের টাইম নেই।’

আরেক ভক্ত লিখেছেন, ‘ঈদ ছাড়া হল হাউসফুল আশা করা যায় না, সেটাও মানসম্মত সিনেমা ছাড়া বাট এইখানে দাঁড়ানো তো দূরের কথা পান খাইয়া পিক ফালানোর জায়গা নেই! শাকিব খান হেটার্স তো এটা মানতে পারবেন না!  পাশের হলে ‘নূর জাহান’ চলছে বাট মানুষ নেই, আর এটাই নেতার পাওয়ার! জাজ মাল্টিমিডিয়া জানে না যে বসের সাথে পাঙা আর জমের সাথে পাঞ্জা সেইম টু সেইম।’

তথ্যসূত্র: শাকিব খানের ফেসবুক ফ্যান পেইজ।

 

প্রশংসায় ভাসছে ‘নূর জাহান’

জুমবাংলা বিনোদন ডেস্ক: অবশেষে ১৬ ফেব্রুয়ারি শুক্রবার বাংলাদেশ ও পশ্চিমবঙ্গে একসঙ্গে মুক্তি পেয়েছে মুখার্জি পরিচালিত নবাগত পূজা ও অদ্রিত অভিনীত `নূর জাহান’ সিনেমাটি । যৌথ প্রযোজনার এ ছবিটি বাংলাদেশের ২১ প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি দেওয়া হয়। মুক্তির প্রথম দিনে বাজিমাত ‘নূর জাহান’। দর্শকরা হলে সিনেমাটি দেখে মুগ্ধ হয়ে অনেক ইতিবাচক প্রতিক্রয়া ব্যক্ত করেন। আসুন এবার কিছু দর্শকের মুখ থেকে শুনি কেমন লেগেছে ‘নূর জাহান’।

একজন ছবিটি দেখে ফেসবুকে লিখেছেন, ‘‘নূর আর জাহানের অসীম ভালোবাসার গল্প ‘নূর জাহান’। অনেকদিন ধরে হলে গিয়ে বাংলা সিনেমা দেখা হয় না। অবশেষে বন্ধুর কথায় গেলাম হলে টিকেট কেটে ঢুকলাম,খুব একটা এক্সপেকটেশন ছিল না ‘নূর জাহান’ নিয়ে। ভেবেছিলাম সেই নরমাল বাংলা সিনেমার মতোই হবে।’’

‘‘কিন্তু সিনেমা শুরু হওয়ার পর থেকে ধীরে ধীরে সিনেমার মধ্যে হারিয়ে যেতে লাগলাম। কলেজে পড়া অবস্থায় দুষ্টু-মিষ্টি ঝগড়া,প্রেম। তার পর ধীরে ধীরে পলিটিক্স আর ক্রাইমের মধ্যে জড়ানো, সব মিলিয়ে ‘নূর জাহান’ আড়াই ঘন্টা দর্শকদেরকে বেধে রাখলো হলের মধ্যে। সবাই মনে হচ্ছিলো সিনেমার মধ্যে ঢুকে গেছেন।’’

‘‘বাংলা সিনেমার স্ক্রিপ্ট যে এতো ধারালো হতে পারে জানাই ছিলো না। ক্লাইম্যাক্স সিনটা নিয়ে বেসি কিছু বলতে চাই না। এক কথায় পূজা চেরি এবং অদ্রিত অভিনয় দিয়ে দর্শক এর মন কেড়ে নিয়েছেন। অসাধারণ মেকিং আর অসাধারণ সিনেমাগ্রাফি পেলাম ‘নূর জাহান’ এ । সব মিলিয়ে মুভিটা অবশ্যই কারো মিস দেওয়া উচিৎ না।’’

আরেক জন ছবির নায়িকা পূজার প্রশংসা করতে গিয়ে লিখেছেন, ‘‘বলাকাতে ‘নূর জাহান’ ছবিটা দেখলাম। অভিষেকেই বাজিমাত পূজার। ছবির জাহান চরিত্রটি দারুণ করেছেন এই নবাগতা! ব্যক্তিগতভাবে আমার কাছে ছবির শেষ দৃশ্য পর্যন্ত পূজার অভিনয় অসাধারণ লেগেছে! কম যান নি কলকাতার ছেলে আদ্রিতও! নায়িকা সংকটকালে নতুন এক নায়িকা পেল ঢালিউড! পূজার জন্য বড় শুভকামনা! আর আপনিও প্রেক্ষাগৃহে গিয়ে ছবিটি দেখতে পারেন, মন্দ লাগবে না। বাংলা ছবির জয়হোক, এগিয়ে যাক।’’

আরেক জন লিখেছেন, ‘‘অনেক টাকা থাকলে অনেক সিনেমা বানানো যায়। কিন্তু অনেক টাকা থাকলেই অনেক ভালো সিনেমা বানানো যায় না। ভাল সিনেমার জন্য টাকার সঙ্গে ভালো মানের রূচিবোধটাও জরুরী। ‘নূর জাহা ‘ দেখে উপরোক্ত কথাটির যথার্থতা খুঁজে পেলাম। শৈল্পিক, নান্দনিক আর অনবদ্য অভিনয়শৈলীর ছবি ‘নূর জানহান’।’’

তথ্যসূত্র: ফেসবুক।

 

 

 

যেসব হলে মুক্তি পাচ্ছে শাকিব-মিম’র ‘আমি নেতা হবো’

জুমবাংলা বিনোদন ডেস্ক: বছরের শুরু থেকে আলোচনার শীর্ষে আছে উত্তম আকাশ পরিচালিত শাকিব-মিম অভিনীত ‘আমি নেতা হবো’ সিনেমাটি। ‘লাল লিপিস্টিক’ নামে একটি আইটেম গানের জন্য ব্যাপক প্রশংসা কুড়িয়েছেন শাকিব-মিম। এছাড়া এর আরো কিছু গান এবং ছবির পোস্টার  সিনেমার প্রতি কৌতূহল বাড়িয়ে দিছে দ্বিগুণ। অবশেষে সে কৌতূহলের অবসান ঘটাতে আগামীকাল সারা দেশে ১১৭ টি হলে মুক্তি পাচ্ছে ‘আমি নেতা হবো’। বিষয়টি নিশ্চিত করেছে ছবিটির প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান শাপলা মিডিয়া। এবার জেনে নেই কোন কোন সিনেমা হলে মুক্তি পাচ্ছে ছবিটি।

ঢাকা: যমুনা ব্লকবাস্টারস, মধুমিতা, সনি, পুনম, চিত্রামহল, জোনাকি, আনন্দ, এশিয়া, জনতা, মুক্তি, সেনা অডিটোরিয়াম, গীত, বিজিবি, শ্যামলী, পূরবী, শাহীন, নিউ গুলশান, মতিমহল, চম্পাকলি, মোহনা ও সেনা অডিটোরিয়াম(সাভার)।

ঢাকার বাইরে: সত্যবতী-শেরপুর, উল্লাস সিনেমা-বীরগঞ্জ, দরশন সিনেমা-ভৈরব, শাহীন সিনেমা-বল্লার বাজার, রজনীগন্ধ্যা-চালা, রাজু সিনেমা-ঈশ্বরদী, সেনা অডিটোরিয়াম-ময়মনসিংহ, গ্যারিসন সিনেমা-দয়ারামপুর, আনন্দ সিনেমা-কুলিয়ার চর, দিন্তার সিনেমা-কেশোর হাট, হ্যাপী সিনেমা-লক্ষ্মীপুর, জনতা সিনেমা-জল ঢাকা, সাগর সিনেমা-কালিয়াকৈর, বাবু টকিজ সিনেমা-কিশোরগঞ্জ, চলন্তিকা সিনেমা-গোপালদী, আলমডাঙ্গা টকিজ-আলমডাঙ্গা, ছন্দা সিনেমা-পটিয়া।

আনামিকা সিনেমা-পিরোজপুর, ঝংকার-বকশীগঞ্জ, নাইট হাউস-পারুলিয়া, মুন-হোমনা, আনন্দ-তানোর, সনি-ইসলামপুর, বনলতা-ফরিদপুর, ভাই ভাই সিনেমা-দেওয়ানগঞ্জ, মনোয়ার সিনেমা-ফরিদপুর, রুপকথা-পাবনা, ফালগুনী-নাগরপুর, ভাই ভাই সিনেমা-সখিপুর, পান্না সিনেমা-মুক্তার পুর, মানসী-কিশোরগঞ্জ, হীরক সিনেমা-গোবিন্দগঞ্জ,

উপহার-রাজশাহী, মানসী সিনেমা-খোকসা, চাঁদ মহল-কাচঁপুর, সিক্তা সিনেমা-ধনুট, খোমটা সিনেমা-দূগাপুর, অভিরুচি-বরিশাল, পুর্বাশা সিনেমা-সান্তাহার, কানন সিনেমা-ফেনী, নন্দিতা-সিলেট, কেয়া সিনেমা-টাঙ্গাইল, আলীম সিনেমা-মঠবাডীয়া, গুলশান-নারায়নগঞ্জ, কল্লোল সিনেমা-মধুপুর, মুক্তি সিনেমা-চান্দাইকোণা, মমতাজ-সিরাজ গঞ্জ, কাজলী সিনেমা-মতলব, মেহেরপুর সিনেমা-মেহেরপুর, ঝর্ণা-দাউদকান্দি, মমতাজ মহল-নীলফামারী।

ফিরোজপুর সিনেমা-পাগলা, সান্তনা-হাজীগঞ্জ, নসীব সিনেমা-সাপাহার, রুপালী সিনেমা-কুমিল্লা, কোহিনুর-চাদঁপুর , আলতা সিনেমা-আক্কেলপুর, গ্যারিসন সিনেমা-কুমিল্লা, ঝংকার-পাঁচদোনা, সোনলী সিনেমা-ঘোড়াঘাট, অবসর সিনেমা-সৈয়দপুর, আলমাস-চট্টগ্রাম, ছন্দা-কালিগঞ্জ, ছবিঘর সিনেমা-ঝিনাইদহ,

গেীরী-শাহজাদপুর, রংধনু সিনেমা-নাজিপুর, শঙ্খ সিনেমা-খুলনা, চিত্রালী সিনেমা-খুলনা, ভিক্টোরিয়া সিমেমা-শ্রীমঙ্গল, চন্দ্রিমা সিনেমা, শ্রীপুর, রাজমনি সিনেমা-বোরহানউদ্দিন, বনানী সিনেমা-কুষ্টিয়া, সাধনা সিনেমা-রাজবাড়ী। চিত্রবানী সিনেমা গোপালগঞ্জ, আলতা সিনেমা-সরিষাবাড়ী, উর্বশী সিনেমা-ফুলবাড়ী, রুনা সিনেমা-চালাকচর,নবীন সিনেমা-মানিকগঞ্জ, আনন্দ সিনেমা-কুলিয়ারচর।

লাবনী সিনেমা-সাতক্ষীরা, চান্দনা সিনেমা-জয়দেবপুর, পৃথিবী সিনেমা-জয়পুর হাট, মৌচাক সিনেমা-ভাঙ্গুরা, তুলি সিনেমা-নাভারন, সান্তনা সিনেমা-হাজীগঞ্জ, রাজিয়া সিনেমা-সদরপুর, বৈশাখী সিনেমা-বাউফল, নবীন সিনেমা-নবীনগর, স্বর্ণমহল-রুপসী, পালকী-চান্দিনা, প্রিয়া-গেীরীপুর, মৌসুমী-পাকুন্দিয়া, মল্লিক সিনেমা-উল্লাপাড়া, সোনালি-টেকের হাট, তিতাস-পটুয়াখালী, রুমা সিনেমা-মুক্তাগাছা ও পুর্বাশা সিনেমা-মাগুরা।


উল্লেখ্য,এ সিনেমায় অভিনয় করার মাধ্যমে দীর্ঘ ৯ বছর পর আবারও জুটি বেঁধে কাজ করেছেন শাকিব-মিম।  ছবিতে আরও অভিনয় করেছেন ওমর সানী, মৌসুমী, কাজী হায়াৎ, ডিজে সোহেল ও সাদেক বাচ্চু প্রমুখ।

তথ্যসূত্র: শাকিব খানের ভেরিফােইড ফেসবুক ফ্যান পেইজ।